রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নিয়ন্ত্রনাধীন রংপুর সিটি পুলিশের ইউনিফর্ম বিতরন

বৃহষ্পতিবার রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সভা কক্ষে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নিয়ন্ত্রনাধীন রংপুর সিটি পুলিশের ইউনিফর্ম বিতরন অনুষ্ঠান উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আকতার হোসেন আজাদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির হিসেবে বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু(প্রতিমন্ত্রী) স্বাগত বক্তব্য রাখেন, কাউন্সিলর তৌহিদুল ইসলাম, রংপুর সিটি পুলিশের কমান্ডার ভবেশ চন্দ্র প্রমুখ । অনুষ্ঠানে অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর মাহবুবার রহমান মঞ্জু, কাউন্সিলর হাফিজ আহম্মেদ ছুট্টু, কাউন্সিলর এমএ রাজ্জাক মন্ডল,সংরক্ষিত আসনের মহিলা কাউন্সিলর হাসনা বানু, মাননীয় মেয়র মহোদয়ের একান্ত সচিব রাশেদুল ইসলাম, রসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন প্রমুখ ।
উল্লেখ্য রংপুর সিটি কর্পোরেশনে নিয়ন্ত্রনাধীন ৬২ জন সিটি পুলিশ রমজান মাসে রংপুর শহরের যানজট নিয়ন্ত্রনে শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে দায়িত্ব পালন করছেন।

রংপুর সিটি কর্পোরেশন সিসি ক্যামেরা নেটওয়ার্ক -এর আওতায়

 

ডিজিটাল সিটি কর্পোরেশন  কার্যক্রমের অংশ হিসেবে  আইন শৃঙ্খলার উন্নয়ন, মানবতার কল্যাণ ও সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রত্যয়ে রংপুর সিটি কর্পোরেশন এলাকায়  অপরাধ দমন ও অপরাধীদের সনাক্ত করতে নগরীকে সিসি ক্যামেরা নেটওয়ার্ক -এর আওতায় আনার উদ্যোগ নিয়েছে  রংপুর সিটি কর্পোরেশন। এই কর্মসূচির অংশ হিসেবে রংপুর সিটি কর্পোরেশন এর উদ্যোগে সি.সি ক্যামেরার নেটওয়ার্ক তৈরির এই কার্যক্রম ০৭ জুন (বুধবার )২০১৭ এর আনুষ্ঠানিক  যাত্রা  শুরু হল। এতে প্রথম পর্যায়ে নগরীর সাত মাথা , বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, লালবাগ ,শাপলা চত্বর,ঢাকা বাস স্ট্যান্ড, সিটি বাজার, সিটি করপোযার্‌ কাচারি বাজার, কেরামতিয়া মসজিদ মোড়, চেক পোস্ট ও কেন্দ্রিয় বাস টার্মিনাল  সিসি ক্যামেরা নেটওয়ার্ক -এর আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে।এছাড়া আরো ৪৫ টি সিসি ক্যামেরা বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে। এসব ক্যামেরা মূলত চুরি, ডাকাতি, মার্কেটের সামনে ইভটিজিং, যানজট নিরসন সহ যে কোন  ধবংসাত্বক কার্যক্রম ছাড়াও ট্রাফিক বাবস্থা নিয়মিত মনিটরিং করা যাবে।দিনরাত ২৪ ঘন্টা এই ক্যামেরা গুলো কাজ করবে। এজন্য সিটি কর্পোরেশনের ডাটা সেন্টার রুমে  ১টি মনিটরিং সিস্টেম বাবস্থা চালু করা হয়েছে । এছাড়া নগরীর প্রত্যেকটি থানায় মনিটরিং সিস্টেম বাবস্থা চালু থাকবে । এতে করে নগরীর অপরাধ দমন, নিরাপত্তা ও আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে থাকবে। এসব স্থানে ৩৬০ ডিগ্রী এ্যাঙ্গেলে ষ্ট্যান্ডডিং ক্যামেরা বসানো হয়েছে। আর এসব ক্যামেরা ধারণকৃত তথ্য প্রায় ১ মাস স্থায়ীভাবে কন্টোল রুমের ডিভিআর এর হার্ডডিক্সে সংরতি থাকবে। এছাড়া জরুরী ডাটা গুলো স্থায়ীভাবে বেকআপ হিসেবে সংরণ করা যাবে ডিভিডি রম বা ইউএসবি ডিভাইস -এর মাধ্যমে।

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা ও অফিস স্টাফদের মাঝে তাদের পরিচিতি নির্ধারণের জন্য আইডি কার্ড প্রদান

সোমবার বিকেলে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সম্মেলন কক্ষে বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে মতবিনিময় সভা  অনুষ্ঠিত হয়।  এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু(প্রতিমন্ত্রী) ।স্বাগত বক্তব্য রাখেন রসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আকতার হোসেন আজাদ। এ সময় মেয়র বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও অফিস স্টাফদের মাঝে তাদের পরিচিতি নির্ধারণের জন্য আইডি কার্ড প্রদান করেন । এর মাধ্যমে তাদের পরিচিতি যেমন নির্ধারণ করা সহজ হচ্ছে তেমনি কর্মক্ষেত্রে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়েছে।

সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা,অবৈধ দখলরোধ সহ পরিস্কার পরিছন্নতা বজায় এবং নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম স্থিতিশীল রাখার জন্য এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

সোমবার (২৯ মে ২০১৭ ইং  )  রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সভা কক্ষে সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা,অবৈধ দখলরোধ সহ পরিস্কার পরিছন্নতা বজায় এবং নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম স্থিতিশীল রাখার জন্য এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু(প্রতিমন্ত্রী) স্বাগত বক্তব্য রাখেন রসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আকতার হোসেন আজাদ, কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র গোলাম কবীর কাজল, জাতীয় ভোক্তা সংরক্ষন অধিকার রংপুর বিভাগের উপ-পরিচালক খন্দকার মোঃ নুরুল আমিন,অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু রাফা মোঃ আরিফ,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ সার্কেল সাইফুর রহমান, সিটি বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক মোঃ মাসুম প্রমুখ ।

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ১৬নং ওয়ার্ডে জাইকার অর্থায়নে প্রায় ৭ কোটি ১ লাখ টাকা ব্যয়ে সাড়ে ৪ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ১৬নং ওয়ার্ডে জাইকার অর্থায়নে প্রায় ৭ কোটি ১ লাখ টাকা ব্যয়ে মতির বাড়ী হতে সুইচ গেট হয়ে চওয়া পাড়া পেট্রোল পাম্প পর্যন্ত ভায়া সিও বাজার ও সাবেক কমিশনার নূরল হকের বাড়ি হতে কেল্লাবন্দ মাদ্রাসা হয়ে বিসিক রোড পর্যন্ত সাড়ে ৪ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু (প্রতিমন্ত্রী )।
এ উপলক্ষে সোমবার চওয়াপাড়া ঈদ গাঁ মাঠে এক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।  সিটি কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন এর সভাপতিত্ব্ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহম্মেদ ঝন্টু, (প্রতিমন্ত্রী)। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ১৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র গোলাম কবীর কাজল , স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমাজ সেবক আব্দুল কুদ্দুস, প্রমুখ অনুষ্ঠানে অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী আজম আলী, রংপুর মহানগর দোকান মালিক সমিতির আহবায়ক মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু,বিশিষ্ট ঠিকাদার অরুপ কান্তি দত্ত প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, আপনাদের দেয়া পবিত্র আমানত আমার দ্বারা কখনও খেয়ানত হয় নাই। তার প্রমাণ রংপুরের উন্নয়ন। ভবিষৎতে আপনাদের আমানত আমার কাছে জমা করলে কখন খেয়ানত হবে না।

রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ৭ নং ওয়ার্ডের পিএসসি,জেএসসি ও এসএসসি জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদেরকে সংবর্ধনা প্রদান

শনিবার গুলালবুদাই উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ৭ নং ওয়ার্ডের পিএসসি,জেএসসি ও এসএসসি জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের এক সংবর্ধনা উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উক্ত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সমাজ সেবক আবু বক্কর সিদ্দিক এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু (প্রতিমন্ত্রী )। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন গুলালবুদাই উচ্চ বিদ্যালয়ে সাবেক প্রধান শিক্ষক মুবারক আলী প্রামনিক, স্বাগত বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাফুজার রহমান মাফু, গুলালবুদাই উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক আশরাফুল আলম প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন গুলালবুদাই উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক খোরশেদ আলম সবুজ।
উল্লেখ্য রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ৭নং ওয়ার্ডের পিএসসি,জেএসসি ও এসএসসি জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মোট ৯৫ জন শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।

ডিজিটাল সিটি কর্পোরেশন বির্নিমানে ডিজিটাল অ্যাটেনডেন্স মনিটরিং সিষ্টেম এর উদ্বোধন

ডিজিটাল সিটি কর্পোরেশনে বির্নিমানে ডিজিটাল অ্যাটেনডেন্স মনিটরিং সিষ্টেম এর উদ্বোধন করেছেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু(প্রতিমন্ত্রী)।

সিটি কর্পোরেশনের সেবার মান বৃদ্ধি ও স্বচ্ছতা নিশ্চিতের লক্ষে ২৩ মে ২০১৭ থেকে ‘ডিজিটাল অ্যাটেনডেন্স মনিটরিং সিস্টেম’ চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ । এই পদ্ধতিতে ডিভাইসের মাধ্যমে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হবে।
ডিজিটাল পদ্ধতিতে হাজিরা নেওয়া হলে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কাজে ফাঁকি দেওয়ার সুযোগ থাকবে না। ফলে সেবার মান ও দক্ষতা বৃদ্ধি এবং সার্বিক কার্যক্রমে স্বচ্ছতা নিয়ে আসা সম্ভব হবে। অবৈধভাবে অনুপস্থিত থাকলে মাস শেষে যাচাইয়ের সময় বেতন কর্তন করা হবে।মঙ্গলবার রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সভা কক্ষে ডিজিটাল অ্যাটেনডেন্স মনিটরিং সিষ্টেম এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনকে দুর্নীতিমুক্ত করার জন্য যা যা করা দরকার প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। তিনি রংপুরবাসীকে একটি দুর্নীতিমুক্ত সিটি কর্পোরেশন উপহার দেয়ার ঘোষনা দেন।  । রসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আকতার হোসেন আজাদের সভাপতিত্বে  অনুষ্ঠানে ডিজিটাল উপস্থিতি যন্ত্র নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন রসিকের  তথ্য প্রযুক্তি শাখার  প্রোগ্রামার একেএম আহসান ফরিদ ।  মেয়র বলেন, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সম্পদ জনগনের তাই যে কোন মূল্যেই হোক এই সম্পদকে রক্ষা করতে হবে।তিনি আরো বলেন, ডিজিটাল উপস্থিতি যন্ত্র বসিয়ে আমরা রংপুর ডিজিটাল সিটি কর্পোরেশনে বির্নিমানে আরো একধাপ এগিয়ে গেলাম।

 

অনুষ্ঠানে অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় মেয়র মহোদয়ের একান্ত সচিব রাশেদুল ইসলাম, রসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন, রসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী আজম আলী সহ রংপুর সিটি কর্পোরেশনের সকল কাউন্সিলর ও সিটি কর্পোরেশনের সকল কর্মকর্তাবৃন্দ ।

৬ কিলোমিটার রাস্তার দুই ধারে ড্রেন নির্মান কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করলেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র

রোববার জাইকার অর্থায়নে ৯ কোটি ৮ লক্ষ ৬৯ হাজার ২’শ ৮৬ টাকা ব্যয়ে জিএল রায় রোডের জাহাজ কোম্পানীর মোড় থেকে সাতমাথার আঙ্গুর মিয়ার ব্রীজ পর্যন্ত প্রায় ৬ কিলোমিটার রাস্তার দুই ধারে ড্রেন নির্মান কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করলেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু (প্রতিমন্ত্রী)। এ সময় তিনি রাস্তা উপর অবৈধ ভাবে থাকা বেশ কিছু স্থাপনা ভেঙ্গে ফেলার নির্দেশ দেন ।
এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ২৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হাফিজ আহম্মেদ ছুট্টু, কাউন্সিলর আকরাম হোসেন, রসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন, মাননীয় মেয়র মহোদয়ের একান্ত সচিব রাশেদুল ইসলাম, রসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী আজম আলী, মহানগর দোকান মালিক সমিতির আহবায়ক মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু প্রমুখ ।

আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক সাংসদ অসুস্থ শাহ আব্দুর রাজ্জাকের শয্যা পাশে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু (প্রতিমন্ত্রী

 

রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক সাংসদ অসুস্থ শাহ আব্দুর রাজ্জাকের শয্যা পাশে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু (প্রতিমন্ত্রী )।শনিবার সাতমাথাস্থ বাসায় এ বর্ষিয়ান নেতাকে দেখতে যান তিনি। অসুস্থ এ বর্ষিয়ান নেতার শয্যা পাশে কিছু সময় কাটান ও তার শারীরিক এবং চিকিৎসার খোঁজ-খবর নেন। এ সময় তিনি রংপুর সিটি কর্পোরেশনের তহবিল হতে এককালীন ২০ হাজার টাকা ও প্রতি মাসে ৫ হাজার টাকা করে সম্মানী ভাতা দেয়ার ঘোষনা দেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন রসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন, রংপুর মহানগর দোকান মালিক সমিতির আহবায়ক মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু,সাতমাথা ব্যবসায়ী সমিতির সাধারন সম্পাদক তৌফিকুর রহমান তপু প্রমুখ।

সিটি কর্পোরেশনের বাস্তবায়নে প্রায় ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে মেডিকেল পাকার মাথা হতে সাখাটা ব্রীজ, পুরাতন দেশ ক্লিনিক হতে ধাপ গংগানাথ রোড ও কেরানীপাড়া কাকিনা রোডের ধারে প্রায় ৬ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন

 

বুধবার(১০-০৫-২০১৭) রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ১৯ নং ওয়ার্ডে জাইকার অর্থায়নে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের সহায়তায় রংপুর সিটি কর্পোরেশনের বাস্তবায়নে প্রায় ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে মেডিকেল পাকার মাথা হতে সাখাটা ব্রীজ, পুরাতন দেশ ক্লিনিক হতে ধাপ গংগানাথ রোড ও কেরানীপাড়া কাকিনা রোডের ধারে প্রায় ৬ কিলোমিটার ড্রেন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু (প্রতিমন্ত্রী )।এ উপলক্ষে বুধবার ১৯নং ওয়ার্ডের মেডিকেল পাকার মাথায় এক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সমাজ সেবক সাবের হোসেন মাস্টার এর সভাপতিত্ব্ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহম্মেদ ঝন্টু, (প্রতিমন্ত্রী)।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, আপনাদের দেয়া পবিত্র আমানত আমার দ্বারা কখনও খেয়ানত হয় নাই। তার প্রমাণ রংপুরের উন্নয়ন। ভবিষৎতে আপনাদের আমানত আমার কাছে জমা করলে কখন খেয়ানত হবে না। তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী রংপুরের পুত্রবধু তিনি রংপুরকে মানুষকে ভালবাসেন। তিনি রংপুরের উন্নয়ন নিজের কাঁধে নিয়েছেন। তিনি রংপুরে বিভাগ, বিশ্ববিদ্যালয়,সিটি কর্পোরেশন এবং আইটি ভিলেজ দিয়েছেন যেখানে হাজার ছেলে মেয়ের প্রশিক্ষন নিবেন এবং অনেক মানুষের কর্মস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে তিনি জানান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ১৯ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শফিকুল ইসলাম দুলাল, কাউন্সিলর জহুরুল ইসলাম আজা, সংরক্ষিত আসনের মহিলা কাউন্সিলর আঞ্জু মনোয়ারা বেগম, রসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডাঃ আব্দুল হাই,,ধাপ চিকলী ভাটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা জিনাত আরা গুলশান, প্রমুখ ।  অনুষ্ঠানে অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রসিকের নির্বাহী প্রকৌশলী আজম আলী, রংপুর মহানগর দোকান মালিক সমিতির আহবায়ক মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু প্রমুখ। এর আগে তিনি রংপুর পায়রা চত্বরে গনতান্ত্রিক বাজেট আন্দোলন এর আয়োজনে আগামি বাজেটে রংপুরে জেলায় কোন খাতে কেমন বরাদ্দ চাই শীর্যক বাজেট ওয়ালের উদ্বোধন করেন।