বিভীষিকাময় রক্তাক্ত ২১ আগস্ট ভয়াল গ্রেনেড হামলা দিবস। বারুদ আর রক্তমাখা বীভৎস হত্যাযজ্ঞের দিন। সভ্যজগতের অকল্পনীয় এক নারকীয় হত্যাযজ্ঞ চালানো হয় ২০০৪ সালের আগষ্টের এই দিনে। গ্রেনেডের হিংস্র দানবীয় সন্ত্রাস আক্রান্ত করে মানবতাকে। সেদিন দেশের বিভিন্ন স্থানে বোমা হামলা এবং নির্যাতন-নিপীড়নের প্রতিবাদে বঙ্গবন্ধু এ্যভিনিউতে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ আয়োজিত মিছিলপূর্ব সন্ত্রাস বিরোধী শান্তি সমাবেশে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের প্রত্যক্ষ মদদে পরিকল্পিতভাবে মানবতার শত্রু সন্ত্রাসী ঘাতকচক্র আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গ্রেনেড হামলা করে।
১১ বছর আগে ২০০৪ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাস বিরোধি সমাবেশে নারকীয় গ্রেনেড হামলার এ ঘটনা ঘটে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং আওয়ামী লীগের শীর্ষ স্থানীয় কয়েকজন নেতা সে দিন অল্পের জন্য এ ভয়াবহ হামলা থেকে বেঁচে গেলেও অপর ২৪ জন নিহত হন। ২১ আগস্টের সমাবেশে বিকেলে একটি ট্রাকের উপর অস্থায়ী মঞ্চে যখন শেখ হাসিনা বক্তৃতা দিচ্ছিলেন তখন আকস্মিক এ হামলায় প্রায়ত রাষ্ট্রপতি জিল্লুর রহমানের সহধর্মিনী ও আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আইভি রহমান এবং আরো ২৩ জন নেতাকর্মী নিহত হন। এছাড়াও এ হামলায় আরো ৪০০ জন আহত হন। আহতদের অনেকেই চিরতরে পঙ্গু হয়ে গেছেন। তাদের কেউ কেউ আর স্বাভাবিক জীবন ফিরে পাননি। দেশের বৃহৎ এই রাজনৈতিক সংগঠন আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূণ্য করতে এ হামলা করা হয়েছিল।
সোমবার রসিকের হল রুমে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের আয়োজনে শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দ্যেশে ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলার নিন্দা জ্ঞাপন ও হামলায় আইভি রহমান সহ নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে আলোচনা সভা,মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দিন আহম্মেদ ঝন্টু (প্রতিমন্ত্রী)। স্বাগত বক্তব্য রাখেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনে কাউন্সিল ও মহানগর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ইদ্রিস আলী, কাউন্সিলর ফজলে এলাহী ফুলু, সংরক্ষিত আসনের মহিলা কাউন্সিলর ও জেলা মহিলা আওয়ামীগের সাধারন সম্পাদিকা দিলারা বেগম, রংপুর জেলা কৃষকলীগের সাধারন সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জাদু, ২৪ নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নাজমুল করিম ডলার, ২৭ নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল গনি দুলাল, ২১ নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম, রসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এমদাদ হোসেন,লাইসেন্স কর্মকর্তা রাফিউর রহমান প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে অনান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর সেকেন্দার আলী, মহানগর দোকান মালিক সমিতির আহায়ক মোয়াজ্জেম হোসেন মিঠু, ২৩নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি মহিউদ্দিন মহি, ২৪ নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম, ৯ নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক, ২৭ নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নাসিম আহম্মেদ সনু, 7নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাকে কাউন্সিলর আনোয়ারুল ইসলাম, ৪ নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি সম সাজু, ৩১ নং ওয়ার্ডের আওয়ামীলীগের সভাপতি জামাল মিয়া । অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর ও মহানগর আওয়ামীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম তোতা। অনুষ্ঠান শেষে মোনাজাত পরিচালনা করেন সদর হাসপাতাল জামে মসজিদের ইমাম মওলানা মাহমুদুর রহমান।

There are no comments yet.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked (*).